মিয়ানমারে আসন্ন জাতীয় নির্বাচনে রোহিঙ্গাদের অংশগ্রহণ করার জন্য আহ্বান জানিয়েছে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের আট সদস্য রাষ্ট্র। ২০১৭ সালে মিয়ানমার বাহিনীর হাতে নির্যাতিত এই মানুষগুলোর প্রতি শুক্রবার এ আহ্বান জানায় তারা। মিয়ানমার কর্তৃপক্ষ সন্ত্রাস দমনের অংশ হিসেবে অভিযান চালানোর দাবি করলেও জাতিসংঘ তাদের প্রক্রিয়াকে জাতিগত নিধন হিসেবে অভিহিত করেছে। ফলে রোহিঙ্গাদের গণহত্যার অভিযোগটি বর্তমানে আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতে বিচারাধীন। খবর এএফপির

জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের আট দেশের রুদ্ধদ্বার ভিডিও কনফারেন্স শেষে নির্বাচনে রোহিঙ্গাদের অংশগ্রহণ সংক্রান্ত বিবৃতিটি দেওয়া হয়। এতে স্বাক্ষর করেছে বেলজিয়াম, দ্য ডোমিনিকান রিপাবলিক, এস্তোনিয়া, ফ্রান্স, জার্মানি, তিউনিসিয়া, ব্রিটেন ও যুক্তরাষ্ট্র। দেশের গণতন্ত্রায়ণে মিয়ানমার সরকারের প্রচেষ্টার প্রতি তাদের স্বীকৃতি রয়েছে বলে বিবৃতিতে জানায় এসব দেশ। তারা আরও বলেছে, ৮ নভেম্বর অনুষ্ঠিতব্য এই নির্বাচন মিয়ানমারের উত্তরণে একটি গুরুত্বপূর্ণ মাইলফলক এবং এতে তহবিল ও কারিগরি দক্ষতা দিয়ে সমর্থন করেছে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়।

তবে রাখাইন ও চীন রাজ্যে ধারাবাহিক সহিংসতার ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করে অনতিবিলম্বে শত্রুতা বন্ধের আহ্বান জানিয়েছে নিরাপত্তা পরিষদের এই সদস্য দেশগুলো। একই সঙ্গে রাখাইনে সংকটের দীর্ঘমেয়াদি কারণগুলো মোকাবিলায় প্রচেষ্টা ত্বরান্বিত করা এবং শরণার্থীদের নিরাপদ, স্বেচ্ছা, টেকসই এবং সম্মানজনক প্রত্যাবর্তনের পরিবেশ তৈরি করতেও মিয়ানমারকে আহ্বান জানানো হয়েছে বিবৃতিতে।