করোনাভাইরাসের সতর্কতার কারণে ইংল্যান্ড সফরে স্ত্রী-সন্তান তথা পরিবারের সদস্যদের নিতে পারেনি পাকিস্তান ক্রিকেট দলের খেলোয়াড়রা। পুরোপুরি পরিবার থেকে আলাদা থেকেই প্রায় দুই মাসব্যাপী সফরটি খেলতে হচ্ছে বাবর আজম, সরফরাজ আহমেদদের।

একই শঙ্কা দেখা দিয়েছিল ভারতীয় ক্রিকেটারদের মনেও। তাদের বেলায় স্ত্রী-সন্তানদের থেকে দূরে থাকার সময়টা হতো প্রায় ১৫০ দিন। তবে সুখবর দিয়েছে আইপিএল আয়োজকরা। আগামী সেপ্টেম্বরে শুরু হতে যাওয়া আইপিএলে স্ত্রী-সন্তাদের সঙ্গে রাখতে পারবেন ক্রিকেটাররা।

তবে এক্ষেত্রে মানতে হবে বেশ কিছু নিয়ম। করোনাভাইরাস বিস্তারের ঝুঁকি প্রশমিত করতে ‘স্ট্যান্ডার্ড অপারেটিং প্রসিডিউর (এসওপি)’ শিরোনামে ১৬ পৃষ্ঠার বিশদ নিয়মকানুন প্রকাশ করেছে আয়োজকরা। সেখানে অনুমতি দেয়া হয়েছে স্ত্রীদের সঙ্গে নেয়ার। তবে কিছু নিয়ম মেনে।

আইপিএল খেলতে যাওয়ার আগে সকল খেলোয়াড় ও টিম স্টাফদের অন্তত ৫টি বাধ্যতামূলক কোভিড-১৯ পিসিআর টেস্ট করাতে হবে। এসব টেস্ট করাতে হবে খেলোয়াড়দের পরিবারের সদস্যদেরও। তবে খেলোয়াড়দের সঙ্গে হোটেল থেকে মাঠে যেতে পারবেন না পরিবারের সদস্যরা। হোটেলে থেকেই উপভোগ করতে হবে ম্যাচ।

কোনো খেলোয়াড় বা তার পরিবারের কেউ যদি আয়োজকদের বেঁধে দেয়া নিয়মকানুনের লংঘন করে, তাহলে সেই খেলোয়াড়কে আইপিএলের কোড অব কন্টাক্ট রুলসের আওতায় যথাযথ শাস্তি দেয়া হবে। খেলোয়াড়রা যেসব নিয়ম মেনে টুর্নামেন্টে অংশ নেবে, তার সবগুলো প্রযোজ্য হবে পরিবারের সদস্যদের জন্যও।