আজ দেশের প্রখ্যাত সাংবাদিক ব্যক্তিত্ব ও লেখক , কলামিস্ট , সাংবাদিক আবুল কালাম আজাদের শুভ জন্মদিন । তার ফেসবুক আইডিতে তার এক বিবৃতিতে তিনি বলেন ……. আলহামদুলিল্লাহ! আজ আমার জন্মদিন… ইতিমধ্যে অনেকেই জন্মদিনের শুভেচ্ছা দিয়েছেন। সবাইকে অনেক ধন্যবাদ। আমার মতো একজন অতি ক্ষুদ্র মানুষের জীবনে যদিও জন্মদিনের তেমন কোন গুরুত্ব নেই তবুও আমার সৃষ্টিকর্তা মহান আল্লাহর প্রতি লাখো কোটি শুকরিয়া। আমার প্রাণপ্রিয় বাবা-মায়ের প্রতি সশ্রদ্ধ সালাম ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি যাদের কল্যাণে আমি আজ “আজাদ”। আমি সবার কাছে দোয়া চাই, আমি যেন আমার জন্মকে সার্থক করতে পারি আমার কর্মের মাধ্যমে। আমার প্রজন্মের জন্য যেন রেখে যেতে পারি অনুকরণীয় এমন কিছু যার মাধ্যমে মানবতা সামান্যতম হলেও উপকৃত হয়। আমি যখন আমার পেছনে তাকাই, তখন দিন, মাস, বছর পেরিয়ে চলে যাই সেই অতীতে যেখানে আমার শুরু। আমার মুখের ভাঙ্গা, ভাঙ্গা কথা আর একটু হাসিতে তৃপ্ত হত সবাই। আমাকে নিয়ে কতই না স্বপ্নের জন্ম হয়েছিল তখন! আজ শৈশব, কৈশর আর অনেকটা সময় পেছনে ফেলে যৌবনে আমি। জীবন চলার বাঁকে জন্মদিয়েছি কত রূপকথা। ছোট্ট একটা

জীবনে কত ইতিহাসের সাক্ষী হয়ে আছি।! এই পৃথিবীতে এমনি একটি দিনে আমি এসেছিলাম, আজ সেই দিন। সেই জন্য আমি আমার সৃষ্টিকর্তা মহান রাব্বুল আল আমিনের কাছে দায়বদ্ধ। তিনি আমায় সৃষ্টি করেছেন তিনিই আমার রব। প্রত্যেকটি মানুষের কাছে তার জন্মদিনের বার্তাটি আনন্দের। আমার কাছেও তাই তেমনই। মানুষের মাঝে আজ আন্তরিকতা, ভালবাসার বড়ই অভাব। কেউ কাউকে যেন বিশ্বাসই করতে চায় না। এটা আমাদের জন্য দূভাগ্যের। যখন আপন মানুষগুলোও ভুল বোঝে তখন তা আরও কষ্টের। জম্ম হল মানুষের পৃথিবী জীবনের শুরু। জম্ম ব্যাপারটাকে যত খুশির বলে মনে করা হয়ে আসলে তা তেমন খুশির নয়। জম্ম হওয়া মানে মৃত্যু ফলে বিজ বোনা। আর মৃত্যুর কথা স্মরন হলেই মন খারপ হয়ে যায়। এই বুঝি আজরাইল হাজির হইল। খালি ভয়। অবশ্য আল্লাহ ও তার রাসুল মৃতুকে স্মরন করতে বলেছেন বেশী বেশী। এতে মন নরম হয়। জগতের প্রতি মোহ থাকেনা। পছন্দ অপছন্দ যাই করি না কেন এটা চির সত্য প্রত্যেকটি আত্মাকেই মৃত্যুর স্বাধ পেতে হবে। বর্তমান মানব সম্প্রদায় এই চির সত্যকে ভুলে থাকতে চেষ্টা করছে। জম্ম দিনের এতো আনন্দ কেক কাটা হই হুল্লোরের মাঝে ভুলে যাই আমার জীবন থেকে খসে পড়ল আরো একটি বছর। ঝড়ে যাচ্ছে বছরগুলো এক এক করে। হায়াত কমছে। জম্ম –মৃত্যু যতই ভাল বা খারাপ হোক না কেন, মনে রাখতে হবে জম্মের মাধ্যাম বান্দার পরিক্ষার হলে প্রবেশ। মৃত্যর মাধ্যমে পরিক্ষার সমাপ্তী। পরীক্ষার হলে বসে বসে কেউ যদি না লেখে সময় নষ্ট করে সে হবে ক্ষতিগ্রস্থ। তেমনি দুনিয়াতে যতক্ষন

থাকা হবে ততক্ষন যদি মানুষ ভোগবিলাসে কাটিয়ে মূল্যবান জীবন নষ্ট করা হয় তাহেলে একইরকম ক্ষতিগ্রস্থ হবে। আমার চারপাশের মানুষেদের ঋণের কথা বলার হিম্মত আমার নেই। আমাকে সকলেই ভালবেসে বিপদে-সংকটে পাশে দাড়িয়ে সাহস জুগিয়েছে, উঠে দাড়ানোর জন্য অনুপ্রেরণা দিয়েছে আমি তাদের কাছে চিরঋনি। সকলের মুখে হাসি ফুটাতে লড়ে যাচ্ছি জীবন সংগ্রামে। গত হওয়া সময়ের সাথে যোগ হচ্ছে আরো একটি বছর। সকলের কাছে সব ভুলের ক্ষমা চাচ্ছি। তারও আগে ক্ষমা চাই মহান রবের কাছে। আজ ও আগামীর দিনগুলো সবাইকে নিয়ে ভাল থাকতে চাই। চাই সুন্দর কিছু মানুষদের সাথে ভালভাবে বেঁচে থাকতে।সবাই দোয়া করবেন। আজ আমি অত্যন্ত আনন্দিত। ফেসবুকের মাধ্যমে এই ক্ষুদ্র আমি আজ পেয়েছি, দেশের খ্যাতনামা অনেক সিনিয়র সাংবাদিক-সম্পাদক, কবি-সাহ্যিতিক, ব্লগার-অনলাইন এক্টিভিটিস্ট, রাজনীতিবিদ আর নানা পেশার আমার পরিচিত অপরিচিত ভাই বন্ধুদের শুভেচ্ছা বাণী। অনুপম কাব্যিক শুভেচ্ছাবার্তা, ভার্চুয়াল নৈসর্গিক উপহার আর ফুলেল শুভেচ্ছায় মন প্রফুল্ল হয়েছে বারবার।মনে হল এখনও বেচে আছি, ভাল আছি। আসলে ভাল আছি তা মাঝে মাঝে ভাবতেও ভাল লাগে। শুভ জন্মদিন আমার নিজেকে, সেই সাথে সকলের জন্য দোয়া রইলো, সবাই ভাল থাকুক, আল্লাহ সবাইকে ভাল থাকার তৌফিক দান করুক। আমি সত্যিই ধন্য। আমি কৃতজ্ঞ আমার সব প্রিয় বন্ধুদের কাছে। অনেক বন্ধুই শুভেচ্ছা জানিয়েছেন, দোয়া করেছেন এ জন্য ধন্যবাদ। আল্লাহ সকলকে উত্তম প্রতিদানে ভুষিত করুন।