করো’নাভাই’রাস ছড়িয়ে যাওয়ার আবহের মধ্যেই যখন চিকিৎসক-স্বাস্থ্যকর্মীদের রীতি মতো দেবতা মেনে পূজা করছেন ভা’রতের বিশাল সংখ্যক মানুষ,

সেখানে হাসাপাতা’লের মধ্যেই কাজ পাইয়ে দেওয়ার প্র’লো’ভন দেখিয়ে শারীরিক স’ম্পর্ক গড়ার অ’ভি’যোগ উঠেছে পশ্চিমবঙ্গের কাটোয়া মহকুমা হাসপাতা’লের ডেপুটি সুপারের বি’রুদ্ধে।

হাসপাতা’লের সেই ‘কা’ণ্ডের’ ভি’ডিও প্রকাশ্যে আসতেই ঘুমের ওষুধ খেয়ে আ’ত্মহ’ত্যার চেষ্টা করেন অ’ভিযু’ক্ত চিকিৎসক। ওই হাসপাতা’লেই বর্তমানে চিকিৎসাধীন আছেন তিনি।

অ’ভি’যোগ উঠেছে, দীর্ঘদিন ধরে কাটোয়া মহকুমা হাসপাতা’লে কাজ পাইয়ে দেওয়ার কথা বলে নারীদের সঙ্গে শারীরিক স’ম্পর্ক গড়ে তোলেন ডেপুটি সুপার অনন্য ধর।

তার বিরু’দ্ধে কাজের টোপ দিয়ে নারীদের যৌ’নতার কাজে ব্যবহার করার অ’ভি’যোগ রয়েছে। এমনকি অর্থের বিনিময়ে নারীদের নিয়ে এসে সেখানে সময় কা’টানোর অ’ভি’যোগও রয়েছে তার বিরু’দ্ধে। গত সোমবার রাতে ফেসবুকে এক নারী ৫২ সেকেন্ডের একটি ভি’ডিও প্রকাশ্যে আনেন। এরপরই তা ভাই’রাল হয়ে যায়।

ভি’ডিওটিতে দেখা যায়, হাসপাতা’লের একটি ঘরের মধ্যেই এক নারীর সঙ্গে ঘনিষ্ঠ হচ্ছেন এক ব্যক্তি। নারীর আচরণে স্পষ্ট, বিষয়টিতে তার একেবারেই মত নেই। ৫২ সেকেন্ডের সেই ভি’ডিও ভাই’রাল হতেই আ’ত্মহ’ত্যার চেষ্টা করেন কাটোয়া মহকুমা হাসপাতা’লের ডেপুটি সুপার অনন্য ধর।

কারণ ভি’ডিওর ওই ব্যক্তি তিনিই। যদিও ভি’ডিওটি বেশ পুরনো। অনন্যকে দেখা যাচ্ছে শার্ট-প্যান্টের সঙ্গে হাফ সোয়েটারেও। বর্তমানে নিজের কর্মস্থল কাটোয়া মহকুমা হাসপাতা’লেই চিকিৎসাধীন রয়েছেন অনন্য।

হাসপাতা’লের হাই ডিপেনডেন্সি ইউনিট (এইচ. ডি.ইউ)-তে ভর্তি আছেন তিনি। বর্তমানে স্থিতিশীল তার শারীরিক অবস্থা। তবে, এলাকার বিধায়ক রবীন্দ্রনাথ চট্টোপাধ্যায় জানিয়েছেন, ভি’ডিও সত্য হলে অনন্য ধরের বি’রুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। কিন্তু ভি’ডিওটি যদি মিথ্যা হয়, তাহলে যারা এর সঙ্গে যু’ক্ত, তাদের ফল ভুগতে হবে।

যদিও হাসপাতা’লের এ ধরনের অবস্থা দেখে অনেকেরই প্রশ্ন, দীর্ঘদিন ধরে হাসপাতা’লের মধ্যে এ ধরনের কার্যকলাপ চলে আসছে, কেউ কিছু জানেন না? ভি’ডিওটি দিয়ে অনন্য ধরের বিরু’দ্ধে উপযু’ক্ত ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য ওই নারী মুখ্যমন্ত্রীর কাছে আবেদন জানিয়েছেন।