করোনায় দীর্ঘদিন লকডাউন থাকার পর রবিবার (৩১ মে) থেকে অফিস চালু হয়েছে। এদিন রাজধানীসহ সারাদেশে গণপরিবহন চালুর অনুমতি থাকলেও একদিন পিছিয়ে সোমবার থেকে চালু করার সিদ্ধান্ত নেন পরিবহন মালিকরা।

সরকারি নির্দেশনা মানার জন্য প্রস্তুতি নিতে এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক সমিতি এ তথ্য জানিয়েছে।

জানতে চাইলে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির মহাসচিব ও ঢাকা সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক খন্দকার এনায়েত উল্লাহ বলেন, ‘আমরা সোমবার থেকে পরিবহন চালু করবো। স্বাস্থ্যবিধিসহ সরকারের অন্যান্য নির্দেশনা মানাতে প্রস্তুতি হিসেবে আমরা এই সিদ্ধান্ত নিয়েছি। ভালোভাবে প্রস্তুতি নিয়েই আমরা যানবাহন নামানো।’

রোববার সকাল থেকে ঢাকা মহানগরীর বিভিন্ন এলাকায় গণপরিবহন দেখা যায়নি। তবে বিভিন্ন কোম্পানির মালিকানাধীন গাড়ি, সরকারি স্টাফ বাস ও লেগুনাসহ ছোটখাটো পরিবহনগুলো সড়কে দেখা গেছে।

এদিন নগরীর সায়েদাবাদ, মহাখালী ও গাবতলী টার্মিনাল থেকে দূরপাল্লার কোনও পরিবহন ছেড়ে যেতে দেখা যায়নি।

জানতে চাইলে বাংলাদেশ বাস-ট্রাক ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি ও সোহাগ পরিবহনের পরিচালক মারুফ তালুকদার সোহেল বলেন, ‘প্রথমে ৩১ মে পরিবহন চালুর নির্দেশনা ছিল। পরে সেটি ১ জুন করা হয়েছে। আমরা সোমবার থেকে পুরোদমে স্বল্প পরিসরে পরিবহন নামাবো। সব ধরনের স্বাস্থ্যবিধি মানতে চেষ্টা করবো।’