কয়েক দশকের মাঝে সবচেয়ে বড় দুর্যোগের মুখোমুখি হয়েছে কলকাতা। এর আগের বড় বড় ঘূর্ণিঝড় যেমন আয়লা, বুলবুল কিংবা ফণী যতটা শক্তিশালী ছিল আম্পান তার চেয়ে অনেক বেশি শক্তিশালী। আলিপুর আবহাওয়া দপ্তর থেকে জানানো হয়েছে, আম্পান উপকূলে আছড়ে পড়ার সময় ঘূর্ণিঝড়ের গতিবেগ ছিল ঘণ্টায় ১৫৫ থেকে ১৬৫ কিলোমিটার। কলকাতায় ঝড়ের গতিবেগ ছিল ১১০-১২০ কিলোমিটার প্রতি ঘণ্টায়।

অথচ আয়লা যখন সুন্দরবনের উপকূলে আঘাত হানে তখন তার গতিবেগ ছিল ঘণ্টায় ১২৫-১৩০ কিলোমিটার। আর কলকাতায় ঝড়ের গতিবেগ ছিল ৯০ কিলোমিটারের মতো। কিন্তু তারপরেও লন্ডভন্ড হয়ে গিয়েছিল শহর। গত বছর নভেম্বরে ঘূর্ণিঝড় বুলবুল আঘাত হানে। বুলবুল উপকূলে বেশি আঘাত হনে। তার তাণ্ডব সুন্দরবন এলাকাতেই সীমাবদ্ধ ছিল। কলকাতায় তার প্রভাব খুব একটা পড়েনি। আবার ফণী আছড়ে পড়েছিল ওড়িশার উপকূলে। কলকাতায় তার প্রভাব পড়ার আশঙ্কা থাকলেও সেই বিপর্যয় এড়ানো গিয়েছিল।