চীনের উহান থেকে বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাসে ৪৭ হাজারেরও বেশি মানুষের প্রাণহানি ঘটেছে। আর এতে আক্রান্ত হয়েছে ৯ লাখ ৩৫ হাজার ১৯৭ জন। তবে করোনা নিয়ে এবার সুখবর দিলেন বাঙালি বিজ্ঞানী অধ্যাপক রাজাগোপাল চট্টোপাধ্যায়। তিনি দাবি করেন, অপ্রতিরোধ্য ও বিস্ময়কর করোনাভাইরাসকে ঠেকাতে পারবে আমলকি, হরীতকী, বহেড়া – এই ত্রিফলাসহ ভারতীয় ভেষজ উদ্ভিদ!

বায়োকেমিস্ট রাজাগোপাল চট্টোপাধ্যায়ের ভাষ্য, যেকোনো জীবাণু তার জিনগত বৈশিষ্ট্য বহন করে ডিএনএ অথবা আরএনএ রূপে। করোনা হলো আরএনএ ভাইরাস। ফলে এর মিউটেশনের হার অত্যন্ত বেশি।

সেক্ষেত্রে করোনার বিস্তার কমাতে রোধ করতে হবে এর আরএনএ সিন্থেথিস। এই কাজে এসব উদ্ভিদের ভেষজ উপাদান কার্যকর হবে বলে রাজাগোপালের ধারণা।

তিনি বলেন, ক্যানসারের ক্ষেত্রে যেমন ডিএনএর উপাদানগুলো ভেষজ নির্যাসগুলোর প্রভাবে ধ্বংস হয়, করোনার ক্ষেত্রেও আরএনএর নির্মাণে যে উপাদানগুলো জরুরি, যেমন নিউক্লিওসাইড ও নিউক্লিওটাইডগুলি, ফেনটন বিক্রিয়ার প্রভাবে ধ্বংসপ্রাপ্ত হবে। কারণ ডিএনএ ও আরএনএর উপাদানগুলো রাসায়নিক দিক থেকে প্রায় সমতুল্য। কাজেই নির্যাসগুলোর প্রভাবে আরএনএ তৈরি স্তিমিত হবে।

গবেষণাগার থেকে করোনাভাইরাসের ওষুধ তৈরি এক দীর্ঘ পথ। তার আগে করোনার তাণ্ডব ঠেকাতে এই ভেষজ উপাদানগুলো বিশেষ উপকারী বলে মনে করেন রাজাগোপাল।

তাই তার পরামর্শ, রোগ প্রতিরোধক্ষমতা বাড়াতে নিয়মিত আমলকি, হরীতকী, বহেরা, খয়ের, বিলিতি আমড়া খাওয়া দরকার। বিলিতি আমড়া পাওয়া না গেলে এর বদলে খাওয়া যেতে পারে বেদানা বা ডালিম। এতেও পলিফিনলিক অণুর প্রাচুর্য ও অ্যান্টি ক্যানসার গুণ রয়েছে।