বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাসে দেশে নতুন করে আরও ৪ জন আক্রান্ত হয়েছেন। এরমধ্যে দুজন চিকিৎসক। ফলে ভাইরাসটিতে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৪৮ জনে।

শুক্রবার (২৬ মার্চ) বেলা ১১টায় স্বাস্থ্য অধিদফতরের রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) পরিচালক ডা. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা করোনাভাইরাস সংক্রান্ত অনলাইন লাইভ ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানান।

তিনি জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ১০৬ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। সবমিলিয়ে ১০২৬ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে।

করোনা ভাইরাস সীমিত পর্যায়ে কমিউনিটিতে ছড়িয়ে পড়ছে বলে আশঙ্কার কথা জানিয়ে ড. ফ্লোরা আরও বলেন, তবে এখনও তা ব্যাপক আকারে ছড়িয়ে পড়েনি।

তিনি আরও বলেন, নতুন সনাক্তকৃত চারজনের মধ্যে দুজন চিকিৎসক রয়েছেন। তারা করোনা আক্রান্ত রোগীকে চিকিৎসা দিয়েছিলেন। চারজনের মধ্যে দুজন ঢাকায় ও দুজন ঢাকার বাইরের। আক্রান্ত দুজন রোগী দীর্ঘমেয়াদি রোগে ভুগছেন।তবে বর্তমানে চারজনই সুস্থ রয়েছেন, কোনো ধরনের জটিলতা নেই।

মীরজাদি সেব্রিনা ফ্লোরা বলেন, প্রথমদিকে শুধুমাত্র বিদেশ থেকে এসেছেন বা বিদেশফেরত কারো সংস্পর্শে এসেছেন তাদের নমুনাপরীক্ষা করা হতো। কিন্তু এখন যাদের বয়স ৬০বছরের বেশি এবং দীর্ঘমেয়াদি অসুখে ভুগছেন, তাদের কারো মধ্যে লক্ষণ বা উপসর্গ দেখা দিলে পরীক্ষা করা হচ্ছে। এছাড়া যাদের নিউমোনিয়া ছিল, কি কারণে নিউমোনিয়া হচ্ছে তা দেখার জন্য নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষা করা হচ্ছে। এছাড়াও বিভিন্ন পেশার লোকজন যারা বিভিন্ন লোকের সংস্পর্শে আসে এমন লোকজনের মধ্যে লক্ষণ ও উপসর্গ দেখা দিলে তাদের পরীক্ষা করা হচ্ছে। এ পরীক্ষার ভিত্তিতে আমরা দেখতে চাই বাংলাদেশের কোথাও কোনো সংক্রমণ ঘটেছে কি-না।

তিনি বলেন, ঢাকা থেকে অনেকে গ্রামের বাড়িতে চলে গেছেন সেখানেও যাতে লক্ষণ-উপসর্গ দেখা দিলে তারা যোগাযোগ করতে পারেন সেজন্য জেলা পর্যায়ে হটলাইন চালু রয়েছে।