রবিবার, ২৯ নভেম্বর ২০২০, ০৫:০৫ পূর্বাহ্ন

‘প্রয়োজনে চীনের মতো হাসপাতাল নির্মাণেও প্রস্তুত সরকার’

Reporter Name
  • আপডেট : বুধবার, ১৮ মার্চ, ২০২০
  • ৬৫ পড়েছেন

করোনাভাইরাস চিকিংসা কিংবা নিয়ন্ত্রণে যত টাকা প্রয়োজন হবে তা দিতে সরকার প্রস্তুত বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল।

তিনি বলেন, প্রয়োজনে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় যদি চীনের মতো বিশেষ হাসপাতাল তৈরির উদ্যোগ নেয়, তাতেও অর্থায়ন করা হবে।

বুধবার অর্থ মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে সরকারি ক্রয়-সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।

অর্থমন্ত্রী বলেন, যে ভাইরাস নিয়ে সারা বিশ্ব বিপদে আছে, আমরা সেই ভাইরাস থেকে মুক্ত আছি বলতে পারব না। যাতে করে (সংক্রমণ) কম রাখা যায় সে কাজটি করতে হবে। আমাদের এখন অভিজ্ঞতা রয়েছে। চায়না (চীন) যখন শুরু করেছিল তাদের অভিজ্ঞতা ছিল না।

তিনি বলেন, সবাই সবার জায়গা থেকে বলতে হবে কীভাবে সবাই (করোনাভাইরাস থেকে) মুক্ত থাকতে পারব। এটি সকলের দায়িত্ব। আমি আপনাদের আশস্ত করতে পারি, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় ফেস করছে…আর্থিক সক্ষমতা তাদের নেই, এটি ঠিক না।

আমাদের আর্থিক সক্ষমতা রয়েছে। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের (যদি) যন্ত্রপাতি বা লজিস্টিক সাপোর্ট দরকার হয়, সেখানে চায়না যেভাবে হাসপাতাল করেছে, সে ধরনের কোনোস হাসপাতাল (যদি) করতে হয়, কম সময়ের মাঝে, স্পেসেফিক পারপাস (বিশেষ উদ্দেশ্যে) বিল্ড হাসপাতাল, এগুলো করার জন্য আমি বিশ্বাস করি প্রধানমন্ত্রী কখনো না করবেন না অর্থায়ন করার জন্য। আমরাও সকলভাবে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়কে সাহায্য করব অর্থায়ন করে, যাতে তাদের কাজগুলো সুন্দরভাবে এবং প্রয়োজনীয়তার তুলনায় কোনোভাবে পিছিয়ে না থেকে কাজগুলো করতে পারে।

করোনাভাইরাস মোকাবিলায় আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল (আইএমএফ) ৫০ বিলিয়ন ডলার অর্থ বরাদ্দ করেছে। সেই টাকা বাংলাদেশ পাবে কি-না জানতে চাইলে অর্থমন্ত্রী বলেন, আইএমএফ টাকা দিলে আমরাও পাব। অন্যান্যরাও দেবে। কোনো আন্তর্জাতিক মহল থেকে সাহায্য-সহযোগিতা পেলে অবহিত করা হবে।

প্রসঙ্গেত, দেশে আরও চারজন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। গত ২৪ ঘণ্টায় এ চারজনের শরীরে করোনার উপস্থিতি পাওয়া গেছে। এ নিয়ে দেশে করোনায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৪ জনে। এদিকে প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসে বাংলাদেশ প্রথম একজনের মৃত্যু হয়েছে।

বুধবার সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের (আইইডিসিআর) পরিচালক অধ্যাপক ডা. মীরজাদী ফ্লোরা এ তথ্য জানান।

প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসে বিশ্বজুড়ে এখন পর্যন্ত ৭৯৮৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমের তথ্য মতে, ১৬৫টি দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়া এই ভাইরাস শুধু চীনেই মারা গেছেন ৩২২৬ জন। এর পর সর্বোচ্চ আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা ইতালিতে। দেশটিতে এখন পর্যন্ত মৃত্যুর সংখ্যা ২১৫৮ জনে দাঁড়িয়েছে।

ইতালিতে গত ২৪ ঘণ্টায় প্রাণ হারিয়েছেন ৩৪৫ জন, নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন সাড়ে ৩৫০০ জনেরও বেশি। এরপরেই রয়েছে ইসলামিক দেশ ইরান। দেশটিতে একদিনে মারা গেছেন ১৩৫ জনসহ মোট মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৯৮৮ জন।

শেয়ার করুন

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ