করোনাভাইরাস নিয়ে আতঙ্কিত না হতে দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, এই ভাইরাস বেশি দিন থাকে না। বেশির ভাগেই চিকিৎসা নিয়ে ভালো হয়ে যায়। তাদের অনেকেই সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে গেছে। তবে বৃদ্ধ ও অসুস্থ যারা তাদের জন্য এ রোগে কিছুটা ঝুঁকি থেকে যায়।

সোমবার সন্ধ্যায় গণভবনে আওয়ামী লীগের ওয়ার্কিং কমিটির বৈঠকে সূচনা বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি। এসময় গণহারে মাস্ক ব্যবহার না করার কথাও বলেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, করোনা বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ছড়িয়ে পড়েছে। এটা ইনফ্লুয়েঞ্জার মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। সারাবিশ্বে জনসংখ্যার তুলনায় আক্রান্তের সংখ্যা খুব বেশি নয়। প্রতি লাখে দু’জন করে আক্রান্ত হচ্ছে। আমাদের দেশে করোনার প্রভাব যেন না পড়ে সেজন্য আমরা ব্যবস্থা নিয়েছি। এটা ভয়ের কিছু না। চিকিৎসা নিলেই ভালো হয়ে যাবে। এখন আবহাওয়ার পরিবর্তন হচ্ছে। এর কারণে সর্দি-কাশি হলে আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই।

অনলাইন ভিসার মাধ্যমে করোনা ছড়িয়ে পড়ছে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, বিশ্বের বিভিন্ন দেশে যাদের সঙ্গে আমাদের অনলাইন ভিসা চুক্তি করা আছে অনলাইন ভিসা আপাতত বন্ধ করে দিয়েছি। আপাতত একে অপরের হ্যান্ডশেক করা থেকে বিরত থাকাই ভালো। এতে করে জীবনটা কারো কাছে সহজে ছড়াবে না।

মুজিববর্ষের কর্মসূচি নিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, যেখানে ব্যাপক জনসমাগম হবে সেই সেবাগুলো আপাতত আমরা স্থগিত করেছি জনকল্যাণের কথা ভেবে। তবে পরবর্তীতে আমরা সেই সভা গুলো করবো। কারণ জনগণের কল্যাণ তাই আমাদের কাছে সবচেয়ে বড়। জনগণ যেন কোন ঝুঁকির মধ্যে না পড়ে সেটি আগে নিশ্চিত করতে হবে। যেসব কর্মসূচিতে লোক সমাগম কম হবে সেসব কর্মসূচি আমরা চালিয়ে যাব।

এসময় সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার আহ্বান জানান আওয়ামী লীগ সভাপতি। সেই সঙ্গে নিজে পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন থাকার পাশাপাশি আশপাশের এলাকা ও যেন পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন থাকে সে ব্যাপারে খেয়াল রাখার আহ্বান জানান তিনি।